এইচ আর এইচ উত্তরাধিকারী রাজকুমার হিসেবে প্রিন্স মোহাম্মদ প্রথম বছরেই রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক উন্নতিতে সফল

তথ্য ছড়িয়ে দিন

Time: March 13, 2019

এইচ আর এইচ উত্তরাধিকারী রাজকুমার,  প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান,  উপ প্রধানমন্ত্রী,  প্রতিরক্ষা মন্ত্রী এবং অর্থনৈতিক ও উন্নয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রিন্স হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার ১ম বছরেই সৌদি অর্থনীতিতে উন্মতি সাধনে সফল হয়েছেন। প্রতিযোগীতামুলক ক্ষেত্রে নতুন অর্থনীতিকে কেন্দ্র করে রাজ্যের সামর্থ্য ও বিনিয়োগ এর উপর ভিত্তি করে গড়ে উঠেছে যা ২০১৮ সালের সবথেকে বড় বাজেটের পর্দা উন্মোচনে সাহায্য করেছে।
উক্ত অনুষ্ঠানে সৌদি সরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স আবদুল আজিজ বিন সাউদ বিন নায়েফ, প্রিন্স মোহাম্মদ এর রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামরিক, প্রতিরক্ষা, বুদ্ধিমত্তা, সংস্কৃতি ও সামাজিক অবস্থানে এই সফলতা ঘোষনা দেন এবং বলেন এই সফলতাই সৌদি আরবকে উন্নত দেশগুলোর মধ্যে একটি হিসেবে গণ্য করবে। যেখানে এখনও দেশটিতে ইসলামিক আর্দশ ও নীতিমালা আরব পরিচিতি হিসেবে বিবেচিত,  তিনি সেখানে এই গৌরবকে পুরো জাতির সাথে ভাগ করে দিয়েছেন।
প্রিন্স মোহাম্মদ, পবিত্র মসজিদের দুজন তত্ত্বাবধায়কের নির্দেশে রাজা সালমান বিন আবদুল আজিজ, সন্ত্রাসী সংগঠন এবং চরমপন্থী ব্লক এবং তাদের আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে একটি অভূতপূর্ব আরব ও ইসলামী জোট গঠন করেছে।
আন্তর্জাতিক সমঝোতা ও সহযোগীতায় সংগঠিত এই জোট সন্ত্রাস, আইএসআইএস, আল কায়েদা, মুসলিম ভাতৃত্ব এবং আরব অঞ্চলের ইরানের সাথে ভাতৃত্ব বজায় রাখতে কাজ করবে।
সরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন “তার প্রচেষ্টা বিভিন্ন পর্যায়ে সফল হয়েছে। “
এইচ আর এইচ উত্তরাধিকার সুত্রে প্রিন্স হিসেবে যোগদানের এক বছর পর সৌদি অর্থনীতি নতুন অর্থনৈতিক পরিসংখ্যান এবং জাতীয় অনুষ্ঠানে নিজেদের এই নতুন রূপান্তরের সাক্ষ্যপ্রাপ্ত হন। রাজ্যটি এই পরিপ্রেক্ষিতে ঘোষনা দেয় যে,  বিভিন্ন মাহাত্যপূর্ণ অনুষ্ঠান শুরু হচ্ছে যাতে ব্যাক্তিগত ও উন্নত জীবনযাত্রার মানকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হবে।
১ম বছর চলাকালীন সময়ে প্রিন্স মোহাম্মদ এনইওএম প্রোজেক্ট চালু করেন যা তথ্যপ্রযুক্তিতে বিনিয়োগকৃত সর্ববৃহৎ প্রোজেক্টগুলোর মধ্যে একটি। তিনি পর্যটন,  লোহিত সাগর ও কিদ্দিয়া প্রকল্পে ও বিনিয়োগ করেন।
জাতিয় গার্ডের প্রধান প্রিন্স খালিদ বিন আবদুল আজিজ বিন আয়াফ বলেন,  রাজা সালমান,  প্রিন্স মোহাম্মদকে উত্তরাধিকার সুত্রে প্রিন্স হিসেবে নিয়োগ করে সার্থক। রাজার এই বুদ্ধিমত্তা প্রিন্স নির্বাচনে সৌদি আরবকে আশার আলো প্রদান করেছে।
মক্কার ডেপুটি গর্ভনর প্রিন্স আবদুল্লাহ বিন বান্দার বলেন, ” প্রিন্স মোহাম্মদ আমাদেরকে শেখায় উচ্চাকাঙ্খার কোনো সীমা নেই। তিনি তার দৃঢ় প্রতিজ্ঞা দিয়ে এটাই প্রমান করেন যে, স্বপ্নপুরনের কোনো সীমা নেই।
” রাজ্যের ভিশন ২০৩০ অর্জনের লক্ষ্যে তিনি আমাদের একটি সমৃদ্ধশালী ভবিষ্যৎ এর দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।” তিনি অনেক বিশ্বাসের সাথে প্রিন্সকে ” উন্নতির কারিগর” হিসেবে আখ্যা দিচ্ছিলেন।
প্রিন্স আবদুল্লাহ আরও বলেন, ” তিনি স্থান, আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক দৃশ্যের উপর তার চিহ্ন রেখে গেছেন। আভ্যন্তরিন উন্নয়ন প্রকল্পগুলির উপর ও নজর রেখেছেন।
এইচ আর এইচ উত্তরাধিকারী সুত্রে প্রিন্স হিসেবে তার ১ম বছরে,  তেল বাজারে ভারসাম্য পুনুরাদ্ধের জন্য সৌদি ভিশন ২০৩০ সফল হয়েছিল। এর মাধ্যমে ওপেক এর সদস্য ও অসদস্যদের মধ্যে ভালো সম্পর্ক স্থাপিত হয়। এটি বাজারে তেলের দাম ও স্থায়িত্ব ধীরে ধীরে উন্নতির দিকে নিয়ে যাচ্ছে।
প্রিন্স মোহাম্মদের প্রথম বছরে সৌদি আরবের বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করে বেশ কয়েকটি বিশ্বব্যাপী সংস্থাগুলো।
উপরন্তু, সাম্প্রতিক মাসগুলিতে সৌদি আরব একটি মাইলফলক অর্জন করে যখন এফটিএসএল রাসেল রাষ্ট্রীয় ইমিগ্রিং মার্কেটের অবস্থা থেকে উন্নীত হয়। মরগ্যান স্ট্যানলি বলেন, এটি শীঘ্রই অনুরূপ পদক্ষেপ গ্রহন করবে। এই ঘটনাগুলি রাজ্যের দ্বারা গৃহীত প্রধান অর্থনৈতিক সংস্কারের দক্ষতার একটি আইন।
উপরন্তু, পাবলিক বিনিয়োগ তহবিলের সভাপতি সৌদি আরবের দৃষ্টিভঙ্গি ২০৩০-এর অংশ হিসেবে প্রধান আর্থিক লাভের একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। প্রিন্স মোহাম্মদ রাজ্যের জন্য একটি বিনিয়োগ কৌশল বিকাশে নিরলসভাবে কাজ করে যা প্রকল্পগুলি প্রধান চাহিদা পূরণ করে এবং অর্থনৈতিক ঝুঁকি কমায়।
প্রিন্স মোহাম্মদের সভাপতিত্বে অর্থনৈতিক ও উন্নয়ন বিষয়ক কাউন্সিল কর্তৃক উপস্থাপিত কৌশলগত পরিকল্পনায়, কিং সালমানের সমর্থনের কারনে সৌদি আরবের স্থানীয় ও বৈদেশিক পর্যায়ে ইতিবাচক ফল পাওয়া যায়।

এই নিবন্ধটি প্রথম  মধ্যে প্রকাশিত হয়েছিল  আশারাক আল-আওসাত

আপনি এই ওয়েবসাইটের আরো আকর্ষণীয় খবর বা ভিডিও চাই যদি এই লিঙ্ক আশারাক আল-আওসাত হোম ক্লিক করুন  


তথ্য ছড়িয়ে দিন