শীর্ষ হুথির ‘মন্ত্রী’ ইয়েমেন থেকে পালিয়েছে সৌদি আরবে আশ্রয় চায়!

তথ্য ছড়িয়ে দিন

 সময়ঃ ১১ নভেম্বর , ২০১৮

ইয়েমেনি সমর্থিত সরকার বাহিনী হোদাইদাহের পূর্ব সীমান্তে একত্রিত হয়, কারণ তারা ১০ নভেম্বর, ২০১৮-এ হাউতি বিদ্রোহীদের শহর থেকে নিয়ন্ত্রণের জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। (এএফপি)
 
জেড্ডাহঃ ইয়েমেনী সরকার তার প্রতিপক্ষ শনিবার হুথি মিলিশিয়া “তথ্যমন্ত্রী” ইয়েমেন থেকে পালিয়েছে এবং সৌদি আরবের আশ্রয় চেয়েছেন।
 
ইয়েমেনের তথ্য মন্ত্রী মামার আল-ইরিয়ানি বলেন, ২০১৪ সালে যুদ্ধ ভেঙে যাওয়ার পর হুথির শাসনের সবচেয়ে উর্ধ্বতন সদস্য আব্দুল সালাম আলী গাবর। ইয়েমেনের রাজধানী সানা থেকে পালিয়ে আসার পর তিনি সৌদি আরব সফরে এসেছিলেন।
 
এদিকে, সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের সমর্থনে ইয়েমেনী সরকার বাহিনী হুদিদাহে প্রধান হাসপাতালের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে, কারণ তারা হাউথিস থেকে রেড সাগর বন্দর শহরটি পুনরুদ্ধারের আপত্তি অব্যাহত রাখে।
 
এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের ছাদে স্নাইপার স্থাপন করার পর হাসপাতালের “ইচ্ছাকৃত সামরিকীকরণ” এর হাউসিকে অভিযুক্ত করেছিল।
 
হুটি এবং সরকারি বাহিনী বিমানঘাঁটি ও হেলিকপ্টারগুলির সহায়তায় নগরীর পূর্বদিকে প্রচণ্ড মারাত্মক যুদ্ধ শুরু হয়। “এখানে যুদ্ধ রাস্তায় যুদ্ধে পরিণত হয়,” একটি সরকারি কর্মকর্তা বলেন।
 
সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটটি শনিবার বলেছে, ইয়েমেনের যুদ্ধাপরাধীদের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জ্বালানি তেলের জ্বালানি সরবরাহের আর প্রয়োজন নেই। “জোট ও জোটের স্বাধীনতা আভ্যন্তরীণভাবে জ্বালানি চালানোর জন্য তাদের ক্ষমতা বৃদ্ধি করেছে”, জোটটি বলেছিল।
 
যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সচিব জিম ম্যাটিস বলেছেন, ওয়াশিংটন সৌদি সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে। তিনি বলেন, “মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বেসামরিক লোকজনকে হ্রাস করতে এবং দেশের সর্বত্র জরুরি মানবিক প্রচেষ্টা সম্প্রসারণের জন্য জোট ও ইয়েমেনের সাথে কাজ চালিয়ে যাবে”।

এই নিবন্ধটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল সংবাদমাধ্যম আরব সংবাদ

আপনি এই ওয়েবসাইটের আরো আকর্ষণীয় খবর বা ভিডিও দেখতে চাইলে ক্লিক করুন এখানে আরব সংবাদ হোম


তথ্য ছড়িয়ে দিন