সৌদি মুকুট প্রিন্সের জন্য পাকিস্তানে গ্র্যান্ড অভ্যর্থনা অপেক্ষা করছে

তথ্য ছড়িয়ে দিন

সময়ঃ  ১৪  ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সৌদি মুকুট প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান অগ্রগতির উপায় নিয়ে আলোচনা করবেন।
 
শনিবার ইসলামাবাদে মুকুট রাজকুমার আসবেন !
 
ইসলামাবাদ: সৌদি আরবের প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে প্রথম সরকারি অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী বুধবার আরব নিউজকে বলেন।
 
১৬ ফেব্রুয়ারি বিকেলে দুদিনের সফরে ইসলামাবাদে মুকুট রাজকুমার আসছে। তিনি পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে তিনটি বিদ্যুৎকেন্দ্র এবং দক্ষিণ-পশ্চিম বেলুচিস্তানে উপকূলীয় শহর গওয়াদারে স্থাপন করা একটি তেল শোধনাগার এবং পেট্রোকেমিক্যাল কমপ্লেক্স সহ ১৫ ট্রিলিয়ন ডলারের চুক্তিতে স্বাক্ষর করার প্রত্যাশা রাখেন।
 
চৌধুরী বলেন, ক্রাউন প্রিন্স শনিবার ইসলামাবাদে আসবেন এবং প্রধানমন্ত্রী হাউজে রাতে অবস্থান করবেন।
 
প্রিন্সের ডায়েরির কর্মপরিকল্পনা দেখে তথ্যমন্ত্রী বলেন, তিনি শনিবার সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতি প্রাসাদে অপেক্ষা করবেন।
 
“পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রী, সেনাপ্রধান, সকল শীর্ষ মন্ত্রী, আমলাতন্ত্র এবং দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্বের পাশাপাশি রাজপরিবারের সদস্যদের দ্বারা তার সম্মানে একটি অভ্যর্থনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে”, চৌধুরী বলেন।
 
রোববার তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এবং মুকুট প্রিন্স শক্তি, বিজ্ঞান, সংস্কৃতি ও তথ্য ও গনমাধ্যমের যৌথ কর্মী দলের সাথে বৈঠক করবেন।
 
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও সেনাপ্রধানের এ সভার সভাপতিত্ব করবেন।
 
বিবৃতিতে যোগ করা হয়েছে যে, ট্যাক্স, পাওয়ার, অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা, প্রচার মাধ্যম ও সংস্কৃতির পেমেন্টের জন্য পাকিস্তান ও সৌদি আরব দায়ী থাকবে।
 
বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “দুই দেশের সহযোগিতার কার্যকর বাস্তবায়ন এবং দ্রুত অগ্রগতি নিশ্চিত করার জন্য একটি শক্তিশালী ব্যবস্থা গড়ে তোলার উপায় নিয়ে আলোচনা করা হবে”।
 
১৭ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান ছাড়ার পর ক্রাউন প্রিন্স আফগানিস্তানে ফিরবে এবং ভারত, চীন, মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়ার দিকে যাবেন।চৌধুরী বলেন, “এটা খুবই অসম্ভাব্য।”
 
সফরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে তথ্যমন্ত্রী বলেন, মুখ্য মহানগর হাকিমের নিজের নিরাপত্তা দল সেখানে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনকে রক্ষা করবে, তবে পাকিস্তানি নিরাপত্তা কর্মকর্তারা ও দায়িত্ব পালন করবেন।
 
চৌধুরী বলেন, ক্রাউন প্রিন্সের সফরকালে ইসলামাবাদে উচ্চ নিরাপত্তা থাকবে এবং পাকিস্তান সেনাবাহিনী ও আধা সামরিক বাহিনী নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে।
 
সৌদি নিরাপত্তা ও গোয়েন্দা কর্মকর্তারাও প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে ও দেশ জুড়ে উপস্থিত হওয়ার আশা করছেন, সোমবার রাতে চৌধুরী বলেন ।
 
ক্রাউন প্রিন্স দ্বারা ব্যবহৃত যানবাহনগুলি শুক্রবার একটি বিশেষ ফ্লাইটের মধ্য দিয়ে পৌঁছাবে, তখন পার্শ্ববর্তী সরঞ্জামগুলিও প্রেরণ করা হবে। লাহোরের প্রয়োজনীয়তা পূরনের জন্য ইসলামাবাদে কমপক্ষে ৮0 টি কন্টেইনারের মালামাল এবং অন্যান্য সামগ্রী পাঠানো হবে বলে আশা করা হচ্ছে।
 
যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বুধবার তার বিবৃতিতে বলেছিল,” বেসরকারী খাতে সহযোগিতার জন্য তারা কাজ করবে”।
 
বিবৃতিতে বলা হয়, “দুই দেশের মধ্যে পার্লামেন্টারি সহযোগিতা বৃদ্ধির উপায় নিয়ে আলোচনা করার জন্য পাকিস্তান সেনেটের একটি প্রতিনিধি দল উপস্থিত থাকবে”।

এই নিবন্ধটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল সংবাদমাধ্যম  আরব সংবাদ

আপনি এই ওয়েবসাইটের আরো আকর্ষণীয় খবর বা ভিডিও দেখতে চাইলে ক্লিক করুন এখানে আরব সংবাদ হোম


তথ্য ছড়িয়ে দিন